Latest News

সভাপতির কথা

লক্ষ প্রাণের বিনিময়ে অর্জিত আমাদের এই প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশকে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যের কবল থেকে মুক্ত করে একটি সুখী-সমৃদ্ধ‌ দেশ হিসেবে গড়ে তোলার জন্য দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির কোনো বিকল্প নেই। আর এই মানবসম্পদ তৈরির প্রথম সোপানই হচ্ছে শিক্ষা। এই শিক্ষা যদি আধুনিক ও যুগোপযোগী না হয় তাহলে দেশের বিপুল জনশক্তি শেষ পর্যন্ত জনসম্পদে রূপান্তর না হয়ে তা জাতির বোঝা হিসেবে পরিগণিত হয়। তাই একবিংশ শতাব্দীর চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় বর্তমান সরকার আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর দক্ষ জনসম্পদ গড়ে তোলার লক্ষ্যে দেশের শিক্ষাব্যবস্থায় ব্যাপক পরিবর্তন এনেছে। আর এই পরিবর্তনে বিশেষ অগ্রাধিকার পেয়েছে আধুনিক তথ্যপ্রযুক্তি ও বৈশ্বিক চাহিদা। সরকারের এই কল্যাণমুখী শিক্ষাব্যবস্থাকে সফল করার লক্ষ্যে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ এর ময়মনসিংহ সেক্টর সদর দপ্তর কর্তৃক পরিচালিত "বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, বিজিবি, ময়মনসিংহ" অত্যন্ত নিষ্ঠা ও দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করে যাচ্ছে।
শিক্ষার্থীদের আত্মনির্ভরশীল ও আত্মমর্যাদা বোধসম্পন্ন  সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য প্রচলিত শিক্ষা ও সহশিক্ষার পাশাপাশি এখানে যুক্ত করা হয়েছে জীবনমুখী শিক্ষার নানান আয়োজন। আধুনিক তথ্য প্রযুক্তিনির্ভর ডিজিটাল ক্লাসের সাথে বাস্তবমুখী প্রশিক্ষণের মাধ্যমে এসব আয়োজন সফল করে তোলার জন্য এখানে কর্মরত রয়েছেন তারুণ্যনির্ভর একদল দক্ষ ও মেধাবী শিক্ষক। তাদের প্রত্যক্ষ তত্ত্বাবধান ও নিবিড় পরিচর্যায় এখানে যারা শিক্ষা লাভ করছে তারা একদিন এ দেশকে একটি উজ্জ্বল আলোকিত ভবিষ্যৎ উপহার দেবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করি।

অধ্যক্ষের কথা

বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ পরিচালিত নিরাপদ ও সুশৃঙ্খল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বর্ডার গার্ড পাবলিক স্কুল এন্ড কলেজ, বিজিবি, ময়মনসিংহের ওয়েব সাইটে আপনাকে স্বাগতম।
আপনারা জেনে খুশি হবেন যে আধুনিক তথ্য প্রযুক্তি সমৃদ্ধ এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি ইতোমধ্যেই ছাত্র-ছাত্রীদের ভালোলাগা আর ভালোবাসার প্রতীকে পরিণত হয়েছে। তাদের এই ভালোলাগা আর ভালোবাসার পেছনে যে বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে তা হলো এর নয়নাভিরাম প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, দৃষ্টিনন্দন স্থাপত্যশৈলী, আদর্শ শ্রেণিকক্ষ, পর্যাপ্ত ক্লাশ ও শ্রেণি পরীক্ষা, মানসম্পন্ন শ্রেণি ব্যবস্থাপনা, পর্যাপ্ত শিক্ষা উপকরণ, সহশিক্ষা ও সুস্থ বিনোদনের আধুনিক সুযোগ-সুবিধা, বিশুদ্ধ পানি ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন ব্যবস্থা, দূষণমুক্ত স্বাস্থ্যকর আবহাওয়া এবং শিক্ষক-কর্মচারীদের হৃদ্যতাপূর্ণ দায়িত্বশীল আচরণ।  
প্রতিষ্ঠানটির ছাত্র-ছাত্রী ও শিক্ষক কর্মচারীদের সময়ানুবর্তিতা ও নিয়মনিষ্ঠার বিষয়টি একজন প্রতিষ্ঠান প্রধান হিসেবে বরাবরই আমাকে বেশ উদ্দীপ্ত করে।প্রচলিত শিক্ষা কার্যক্রম ও সহশিক্ষার পাশাপাশি প্রতিটি শিক্ষার্থীকে এখানে যেভাবে জীবনঘনিষ্ঠ বাস্তবমুখী শিক্ষা দেয়া হয় তা তাদের আত্মনির্ভরশীল মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে বেশ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলে আমি বিশ্বাস করি। আমি এটাও বিশ্বাস করি সততা, নৈতিকতা ও মানবিক মূল্যবোধের যে শিক্ষা তারা এখান থেকে অর্জন করছে তা কেবল তাদের ব্যক্তি বা পারিবারিক জীবন নয়, সমাজ ও রাষ্ট্রীয় জীবনকেও এক সময় সমানভাবে আলোকিত করবে। একইসাথে তাদেরকে আত্মমর্যাদাবোধসম্পন্ন দেশপ্রেমিক, সৎ, দক্ষ, যোগ্য ও আদর্শ নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতেও অসামান্য ভূমিকা রাখবে।
প্রাণোচ্ছল শিক্ষার্থীদের পাশাপাশি কর্মচঞ্চল শিক্ষক-কর্মচারী, দায়িত্বশীল অভিভাবক এবং গভর্নিং বডির সম্মানিত সদস্যবৃন্দের সম্মিলিত প্রয়াসে এ প্রতিষ্ঠানটি একদিন শিক্ষা ও সমাজ উন্নয়নের এক উজ্জ্বল মাইলফলক হয়ে ওঠবে বলে আমি দারুণভাবে আশাবাদী।

Notice

Visitors

  • Current User : 1
  • Total Visitors : 15009
  • Todays Visitors : 30